ব্রাহ্মণবাড়িয়া.প্রেস:-ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার মজলিশপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম ও মজলিশপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে ব্যক্তি মালিকানা (নালভূমির) পৃথক দাগের দু‘টি জায়গায় জুরপূর্বকভাবে সরকারি রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ উঠেছেন । 

জানাযায়, পূর্ব বিরোধের জেরধরে মজলিশপুর ইউপি চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম, বড় বাকাইল এলাকার মিজান মিয়া গংদের পৈতিক সম্পত্তির পৃথক দু‘টি (নালভূমির) জায়গার উপর দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করে এলাকায় সাংঘর্ষিক পরিস্থিতি সৃষ্টি  করছেন ।

ভোক্তাভোগী মিজান মিয়া জানান, ইউপি চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম পূর্ব বিরোধের জেরধরে সাংঘর্ষিক ভাবে আমাদের পৈতিক সম্পত্তির ৭৫ পয়েন্ট (নালভূমি) জায়গা জুরপূর্বকভাবে রাস্তা বানিয়ে অহেতুক দাঙ্গাহাঙ্গামা সৃষ্টির পায়তারা করছেন।

এ নিয়ে আদালতে মামলা দায়ের করা হলে বিজ্ঞ আদালত আমাদের মালিকানাধীন জায়গা (নালভূমি) ছেড়েদিয়ে রাস্তা নির্মাণের নির্দেশ দিলেও, ইউপি চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম আইনকে তোয়াক্কা না করেই সে তার মনমতো সাংঘর্ষিক কর্মকান্ড চালাচ্ছেন।

তিনি বলেন, আমাদের কোন প্রকার কোন অনুমতি ছাড়াই জুরপূর্বকভাবে আমাদের জায়গা থেকে মাঁটি কেটে নিয়ে আমাদের জায়গার ভিতর সড়ক নির্মাণ করেন।

স্থানীয় এলাকাবাসীরা জানান, এই রাস্তাটি তাজু চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা সিরাজুল ইসলামের ব্যক্তি উদ্যোগেই নির্মাণ করা হয়েছে। এনিয়ে জায়গার মালিক মিজান গংদের সাথে অনেক ঝাঁমেলাও হয়েছে । স্থানীয় ১ নং মজলিশপুর ইউপির ৮ নং ওয়াডের সদস্য হাসান (মেম্বার) জানান, ইউপি চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম সম্পূর্ণ বেআইনীভা মিজান গংদের ৭৫ পয়েন্ট জায়গা সড়কের ভিতর ডুকিয়ে দিয়েছেন । এনিয়ে প্রতিবাদ করা হলেও চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম কারো কথা শুনেননি। আদালতের রায়ও তিনি মানতে রাজি নন।

By khobor

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *