ব্রাহ্মণবাড়িয়া.প্রেস:- মো. আজহার উদ্দিন।ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধীতায় দুই যুবককে টেটাবিদ্ধ করে খুন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৯ই সেপ্টেম্বর) বিকাল ৫টার দিকে উপজেলার লালপুর ইউনিয়নের লামাবায়েক গ্রামের এ ঘটনা ঘটেছে। ওই সংঘর্ষে নারীসহ অন্তত ১০জন আহত হয়েছেন।

নিহত ইশান লামাবায়েক গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে এবং মনির মৃত সিরাজ মিয়ার ছেলে। গলায় আঘাতে ইশান এবং বুকের মাছ ধরার চলের আঘাতে মনিরের মৃত্যু হয়েছে।

স্থানীয় লোকজন ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, লালপুর ইউনিয়নের লামাবায়েক গ্রামের বাদশাহ বাড়ির আলী আজম নামে এক ব্যক্তি প্রায় ছয় থেকে সাত মাস আগে সৌদি প্রবাসী ওই গ্রামের বেপারী বাড়ির মিজানুর রহমানের কাছ থেকে শুটকির ব্যবসার জন্য ৫০লক্ষ টাকা ধার নিয়েছিলেন। কিন্তু টাকা ফেরত দেওয়ার কথা বলে একাধিক সময় দিলেও শেষ পর্যন্ত পাওনা টাকা পরিশোধ করেননি আলী আজম। বিষয়টি নিয়ে মিজানুরের সঙ্গে আলী আজমের বিরোধ দেখা দেয়। আলী আজম গত কয়েক দিন আগে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় টাকা পরিশোধের কথা মিজানুরকে জানান। ইশান, মনির হোসেন, তফসির মিয়া গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পাওনা টাকা নিতে আলী আজমের বাড়ি যান। বাড়িতে গিয়ে টাকা চাইলে আলী আজম বাড়ির লোকজন নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে টেঁটা, বল্লম, ছুরি নিয়ে ইশান, মনির ও তফসির মিয়াকে রাস্তায় ফেলে মারধর করে। এতে তারা সকলেই গুরুতর আহত হয়। খবর পেয়ে মিজানুরের বাড়ির লোকজন ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতের উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ইশান ও মনিরকে মৃত ঘোষণা করেন। হামলায় তফসির ও রিকশা চালক রাসেল মিয়া আহত হন। গুরুতর আহত তফসিরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত ফায়েজুর রহমান বলেন, গলায় আঘাতের কারণে শ্বাসবন্ধ হয়ে ইশান মারা গেছেন। নিহত মনিরের বুকে আঘাতের জখম দেখা গেছে।

আশুগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবেদ মাহমুদ বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে এলাকার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আছে। নিহত ইশান ও মনিরের লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

By khobor

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *