ব্রাহ্মণবাড়িয়া.প্রেসঃ- নিজেস্ব প্রতিবেদক। মাদকদ্রব্য ও চোরাচালান উদ্ধার অভিযানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ‘খ’ গ্রুপে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে। মাদকদ্রব্য ও চোরাচালান উদ্ধার অভিযানে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ‘খ’ গ্রুপে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে। আগামীকাল মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারি) সকাল ১১টায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ লাইনস, রাজারবাগে ‘পুলিশ সপ্তাহ-২০২০’ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। ওইদিন এ উপলক্ষে অনুষ্ঠানে (আইজি’জ ব্যাজ, শীল্ড প্যারেড, অস্র/মাদক উদ্ধার) পুরষ্কার বিতরণ করা হবে। ওই পুরষ্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে স্ব স্ব জেলার পুলিশ সুপার/ইউনিট প্রধানগণকে যথাসময়ে উপস্থিত থেকে পুরষ্কার গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়। গত বৃহস্পতিবার (২ জানুয়ারি) পুলিশ হেডকোয়ার্টাসের স্পেশাল ক্রাইম ম্যানেজমেন্ট শাখার স্মারক নং- এসসিএম(মাদক)/ ৮-২০১৮/০১(৪২) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা যায়। উল্লেখিত বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায়, মাদকদ্রব্য উদ্ধারের জন্য এ বছর সারাদেশে ‘ক, খ, গ, ঘ, ঙ ও চ’ এই পাঁচ গ্রুপ থেকে ১৮ জেলাকে নির্বাচিত করা হয়। এছাড়া চোরাচালান মালামাল উদ্ধারে সারাদেশে ‘ক, খ, গ, ঘ’ এই চার গ্রুপে ১২ জেলাকে নির্বাচিত করা হয়। এরমধ্যে মাদকদ্রব্য উদ্ধারের জন্য ‘খ’ গ্রুপ থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে। এ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পদন্নোতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার) মুহাম্মদ আলামগীর হোসেন পিপিএম কালের বিবর্তনকে বলেন, মাদকদ্রব্য ও চোরাচালান মালামাল উদ্ধারের জন্য সিলেকশনের মাধ্যমে ‘খ’ গ্রুপ থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া দ্বিতীয়স্থান অর্জন করেছে। তিনি আরো বলেন, মাদকদ্রব্য ও চোরাচালান উদ্ধারের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে এবং আশা করি আগামীতে আমরা দেশসেরা নির্বাচিত হব। মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারি) সকাল ১১টায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ লাইনস, রাজারবাগে ‘পুলিশ সপ্তাহ-২০২০’ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। ওইদিন এ উপলক্ষে অনুষ্ঠানে (আইজি’জ ব্যাজ, শীল্ড প্যারেড, অস্র/মাদক উদ্ধার) পুরষ্কার বিতরণ করা হবে। ওই পুরষ্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে স্ব স্ব জেলার পুলিশ সুপার/ইউনিট প্রধানগণকে যথাসময়ে উপস্থিত থেকে পুরষ্কার গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়। গত বৃহস্পতিবার (২ জানুয়ারি) পুলিশ হেডকোয়ার্টাসের স্পেশাল ক্রাইম ম্যানেজমেন্ট শাখার স্মারক নং- এসসিএম(মাদক)/ ৮-২০১৮/০১(৪২) এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা যায়। উল্লেখিত বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায়, মাদকদ্রব্য উদ্ধারের জন্য এ বছর সারাদেশে ‘ক, খ, গ, ঘ, ঙ ও চ’ এই পাঁচ গ্রুপ থেকে ১৮ জেলাকে নির্বাচিত করা হয়। এছাড়া চোরাচালান মালামাল উদ্ধারে সারাদেশে ‘ক, খ, গ, ঘ’ এই চার গ্রুপে ১২ জেলাকে নির্বাচিত করা হয়। এরমধ্যে মাদকদ্রব্য উদ্ধারের জন্য ‘খ’ গ্রুপ থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে। এ বিষয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পদন্নোতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার) মুহাম্মদ আলামগীর হোসেন পিপিএম কালের বিবর্তনকে বলেন, মাদকদ্রব্য ও চোরাচালান মালামাল উদ্ধারের জন্য সিলেকশনের মাধ্যমে ‘খ’ গ্রুপ থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া দ্বিতীয়স্থান অর্জন করেছে। তিনি আরো বলেন, মাদকদ্রব্য ও চোরাচালান উদ্ধারের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে এবং আশা করি আগামীতে আমরা দেশসেরা নির্বাচিত হব।

By khobor

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *