ব্রাহ্মণবাড়িয়া.প্রেসঃ- বার্তা রিপোর্ট।  ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শাহবাজপুর ১০নং ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও কলেজের সভাপতির বিরুদ্ধে কোটি টাকা বানিজ্যের অভিযোগ করেছেন উক্ত কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ রমজান।

কলেজের আয় ব্যয়ের হিসেব চাওয়ায় শাহবাজপুর  তিতাস মডেল কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ একেএম রমজান আলীকে পেটালো, কলেজের সভাপতি ও ১০ নং শাহবাজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রাজিব আহমেদ রাজ্জি ও তার সহযোগী  রোমান নামের এক সন্ত্রাসী। 

গতকাল ৭ জানুয়ারি কলেজটির ছুটির পর একটি কক্ষে রমজানকে ডেকে নিয়ে যান ফাইজুল ইসলাম রোমান। ওই কক্ষে আগে থেকেই উপস্থিত ছিল কলেজের সভাপতি ও শাহবাজপুর ১০নং ইউপি চেয়ারম্যান রাজ্জি। রমজান আলী প্রবেশ করতেই রুমটির দরজা বন্ধ করে তাকে চেয়ারের সঙ্গে বেঁধে ফেলেন ওরা  তিনজন। লাঠি দিয়ে বেধড়ক পেটাতে থাকে আর রাজ্জি বলতে থাকে, তুই কলেজ ছাড়বি কবে? তোর জন্য দুই টাকাও হজম করতে পারছি না। অন্যদিকে তার দুই সহযোগী রোমান ও সবজি বিক্রেতা গামছা দিয়ে রমজানের গলায় চাপতে থাকে। পরে অবস্থা খারাপ দেখেলে তার হাতের বাধন খুলে দেন। কলেজ থেকে দুই জনের সহযোগিতায় কোনোরকম পালিয়ে একটি সিনজিতে করে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার একটি বেসরকারি হাসপাতাল চিকিৎসা নেন রমজান। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় অভিযোগ দায়েরের প্রস্ততি চলছিল চেয়ারম্যান রাজ্জির বিরুদ্ধে।

জাবতে পাওয়া যাই, কলেজের নামে বিভিন্ন ব্যাক্তি ও প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে টাকা তুললেও সেসব নিজের নামে লিখিয়েছেন কলেজের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান রাজিব আহেমদ রাজ্জি। গত ২০১৮ সালের ১ ফেব্রুয়ারি তিতাস মডেল কলেজের নামে আল-আরাফা ইসলামী ব্যাংকের পল্টন শাখায় খোলা ব্যাংক হিসাবে কলেজের নামে এফডিআর এর এক লাখ টাকা ছাড়া গত দুই বছরে মাত্র ৬২ হাজার টাকা লেনদেন করেন। এর অতিরিক্ত কোনো ধরণের লেনদেন করেননি কলেজ কর্তৃপক্ষ । এই প্রতিবেদককে কলেজের অ্যাকাউন্ট ব্যবহার না করার বিষয়টি নিশ্চিত করেন ব্যাংকের এক কর্মকর্তা। কলেজের শিক্ষকদের একজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, গত ২০মাসে তিতাস মডেল কলেজের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার না করে কলেজের প্রতিষ্ঠাতাদের তিনজন রাজিব আহমেদ রাজ্জি, ফাইজুল ইসলাম (রোমান) ও মো. রোমান মিয়া যোগশাজোশে নিজেদের কাছে টাকা রাখছেন। কলেজ নিয়োগ প্রাপ্ত অন্যান্য শিক্ষকদের বেতন দিলেও যার হাত ধরে তিতাস মডেল কলেজ প্রতিষ্ঠাতা হয়েছে সেই অধ্যক্ষ রামজান আলীকেই গত চার মাস ধরে বেতন দিচ্ছে না বলে তিনি জানিয়েছেন।

এসব অভিযোগ অস্বীকার করে শাহবাজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রাজিব আহমেদ রাজ্জি বলেন, কারো অভিযোগে কিছু আসে যায়না। এ সবকিছুই মিথ্যে।  

 

By khobor

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *